চাওয়া পাওয়ার পথে পথে....
4331
2
|   Jun 02, 2017
চাওয়া পাওয়ার পথে পথে....

আসলে জীবনটা কি শুধুই কিছু চাওয়া পাওয়ার মাঝে সীমাবদ্ধ হয়ে যাওয়া আমাদের একটা ছোট্ট পৃথিবী....না কি দুহাত খুলে হাওয়ায় উড়িয়ে দেওয়া আমাদের সব না পাওয়া গুলোর জল ছবি! সেই কবে থেকে তো চেয়ে আসছি সব না পাওয়া জিনিষ গুলোকে। কখনও খেলনা, পুতুল নয়তো বা আকাশ ছোঁয়া দামের কোনো ফ্রক কিংবা আরো একটু ভালো রেজাল্ট! বড় হতে হতে সেই চাওয়া টা আবার বদলে গেল কখন কে জানে।

 মন তখন খেলনা, পুতুল, সাইকেল এর গন্ডি ছাড়িয়ে অন্য জগতে...  সে একদম আলাদা এক জগৎ।সেই অচেনা  জগৎ টার কিছুই ছাই মাথায় ঢোকে কই!! অথচ এক অসীম কৌতুহল... সব কিছুই কেমন যেন আলাদা, কিছু চেনা আর অনেকটা অচেনা একটা পুরো পৃথিবী। খেলনার দোকানের সামনে দাঁড়িয়েও মন তখন খেলনা চাইলো না আর। মনে মনে সে আরো অনেক কিছু চাইতে লাগলো। সেই চাওয়া সে কোনোদিন পেলো কি? 

অথচ তার তো বিয়ে হলো, ছেলে, মেয়ে ঘর সংসার সব পেলো সে.... কিন্তু সেই কাঁচের দোকানের বাইরের জগৎটা আর ভেতরে ঢুকে জিনিষ গুলো পাওয়ার পরের জগৎ টা এত আলাদা, এত অন্য রকম ,যে সে আবার নিজের অজান্তেই কখন যেন সেই ছোট বেলার ভাঙা চোরা খেলনার জগৎ টা তেই ফিরতে চাইলো।সেই না পাওয়া খেলনা , পুতুল, ছবির বই এর দুঃখ  আর তাকে কাতর করলো কই! সেই না পাওয়ার মাঝেও অনেকটা নিজের করে ভালোলাগা, ভালোবাসার ছোট ছোট মুহূর্ত গুলো বারবার কাছে হাত ছানি  দিয়ে ডেকে নিয়ে গেলো যে তাকে !  দম বন্ধ হয়ে যাওয়া এই দুনিয়া টা থেকে বারবার পালাতে চাইলো সে... করুন মিনতি করে ঠাকুরের পায়ে আছড়ে পড়ে সে একটাই কথা বারবার বললো.... আমাকে আমার সেই পুরোনো জগৎ টাই ফিরিয়ে দাও। আমি আর কিছুই চাইবো না তোমার কাছে।  এই অনেক পাওয়ার ফাঁপা মিথ্যে জগৎ টা থেকে একবার, শুধু একটি বার আমাকে ফিরে যেতে দাও ঠাকুর .....কিন্তু তাই কি আর হয়। চলে যাওয়া জিনিষ কবে কোনোদিন ফিরে আসে কি ?? সে সময় হোক বা চলে যাওয়া কোনো মানুষই হোক না কেন !

 সে  যেন সেই ফেলে আসা সময়ের মতো... মা বলতো, সময় চলিয়া যায়, নদীর স্রোতের প্রায়.... ছোট বেলায় কে কবে এর মানে বুঝেছে বলো তো! সবাই তো শোনে আর ভাবে... আমিও ভাবতাম তাই... দূর তাই আবার হয় না কি?? পুরো সময় টাই তো আমার.... কার সাধ্য আমার সময়ে তে ভাগ বসায়...  আসলে ছোট বেলাটার সুখ ছোট বয়েসে কে কজন বুঝেছে... বল তো !আমি তো বুঝিনি।অনেকেই হয়তো আমার মতো বোঝেনি আর বুঝতেও চায়না বোধহয়।

 সেই অনবরত বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখতে দেখতে যেদিন সত্যি বড় হয়ে গেলাম সেদিন মুখ লুকিয়ে বারবার , কখন যেন আবার মাঝে মাঝে আয়নায় নিজের সেই ছোট বেলাকার জল ছবি টা কে খুঁজে বেড়িয়েছি।  আমার তানপুরা,হারমোনিয়াম.... গানের বই গুলোকে স্বপ্নেও বারবার খুঁজেছি। কিন্তু ওই যে.... সময় চলিয়া যায়... আর সে তো ফেরে না হায়। শুধু স্মৃতি আর কিছু আবছা হয়ে যাওয়া জল ছবি। হয়তো কোথাও লুকিয়ে রাখা কত গুলো নুড়ি পাথর, কিছু ভাঙা কাঁচের টুকরো আর মাথার সব চুল উঠে যাওয়া কয়েকটা ন্যাড়া পুতুল। সেই পুতুল খেলার খাট,আলমারির কিছু ভাঙা চোরা টুকরো। যত্ন করে রাখা রাংতা, মার সেলাই বাক্স থেকে লুকিয়ে নিয়ে রাখা কিছু রং বেরঙ্গী বোতাম আর সুতো। কবে কখন সেই স্কুলের প্রাইজ পাওয়া কিছু গল্পের বই। 

 আসলে বড় হবার পরেই তো বোঝা যায় কি হারিয়ে ফেলেছি। সেই একটা রামধনুর রঙে ভরা আস্ত একটা ছোটবেলা। বাবার বকুনি, মার কানমলা আর পড়াতে আসা দিদিমণির কড়া চোখ রাঙানি.... কবে কখন আস্তে আস্তে এরা সরে গেলো তা তো বুঝতেই পারিনি কোনোদিন। সেই যেন হঠাৎ ঘুম ভেঙে উঠে দেখা একদম একটা অজানা জগৎ।। মা তুমি নেই, বাবা , দিদিরা কেউ নেই।  অনেক অনেক চেনা মানুষরা সব আস্তে আস্তে কোথায় যেন হারিয়ে গেছে। আমি বারে বারে আবার চোখ বন্ধ করি, এই ভরসায় যদি এবার চোখ খুলে তোমাদের দেখতে পাই ! কেউ একজন , অন্তত একটি বার!

কিন্তু সে আশা আর পুরো হয় না যে... দিন কেটে যায়। বর্ষার আকাশে রামধনু হয়তো আগের মতোই আসে, কিন্তু আমার চোখে সে রং আর সাত রঙের স্বপ্ন আনে কই! দুর্গা পুজোর ঢাকের আওয়াজ কানে আসে বৈকি কিন্তু দৌড়ে বাইরে যাওয়া আমার পা টা কে কে যেন আটকে রাখে... কানে কানে ফিস ফিস করে বলে , দৌড়ে যাস না এভাবে... লোকে কি বলবে !

তাই নতুন কিছুর ছোঁয়ায় না ভেসে আমি আর পাঁচ জনের মতন রোজকার দিনচর্যায় ব্যস্ত হয়ে যাই। আমি অভ্যেস করে ফেলি অনেক  চোখের জল লুকিয়ে রাখার.... তবু জানো শুধু কখনো কোনো পুতুলের দোকানে, বা কোনো শপিং মলে নানান রকমের চোখ জোড়ানো খেলনার দোকানে... বাবা মার সাথে ছোট বাচ্ছাদের  জেদ করতে দেখে এক মুহূর্তের জন্য হলেও কেমন যেন থমকে দাঁড়িয়ে যাই... অপলকে দেখি.... সেই অনেক পুরনো , অনেক চেনা আমার সেই আমি টাকে! ওদের ওই অপরূপ কান্না হাসির মাঝে নিজের বাবার কাছে দাঁড়িয়ে থাকা নিজেকে দেখতে পাই যেনো .... সবটাই নিজের ভেবে সেই ক্ষনিকের মুহূর্ত গুলো আঁকড়ে ধরতে যাই বারবার....আর মনে মনে প্রার্থনা করি...

 একটি বারের জন্য আমার ওই দিনগুলো ফিরিয়ে দাও ঠাকুর...

😢😢

Read More

This article was posted in the below categories. Follow them to read similar posts.
LEAVE A COMMENT
Enter Your Email Address to Receive our Most Popular Blog of the Day