মা আমার..    
9332
4
938
|   May 12, 2017
মা আমার..    

......জানো মা,তোমাকে আজকাল আমার বড় বেশী মনে পড়ে। তুমি যে কবে আকাশের তারা হয়ে গেছো আর বাবার কাছে চলে গেছো আমার মন সে কথা মানতে চায় না মা।

 আমি তোমায় খুঁজে বেড়াই পথে,ঘাটে,মন্দিরে....লাল পাড় সাদা শাড়ির আড়ালে কত মায়েদের মাঝে কিন্তু প্রতিবার নিরাশার হাত ধরে ফিরে আসি , তা কি তুমি জানো মা! রাতের আকাশের সব থেকে জ্বলজ্বলে দুটো তারার দিকে চেয়ে তোমাকে আর বাবাকে ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে পড়ি আমি। 

আসলে সেই ছোটবেলার অভ্যেস গুলো , কিছু হলেই দৌড়ে চলে যাওয়া তোমার কাছে, তোমার কাছে বকুনি খেয়ে বাবার কাছে নালিশ করা....সে দিন গুলো এতো তাড়াতাড়ি কেন চলে গেলো বলো তো?? অথচ যেদিন খুব দুস্টুমি করে কানমলা খেয়ে ঘুমোতে যেতাম, সেদিন তো স্বপ্নের দুনিয়ায় পুরোটা যাবার আগে অবধি ঠাকুর কে অবিরল প্রার্থনা করতাম....হে ঠাকুর আমাকে বড় করে দাও।

 এত বকুনি আর সহ্য হচ্ছে না। তুমি আলাদা ডাকতে ঠাকুরকে , বলতে ওকে একটু শান্ত করে দিও ঠাকুর , আমি যে আর পারি না।অথচ কি আশ্চর্য দেখো আজ ঠাকুর তোমার আর আমার সব কথা শুনে নিয়েছে !!আমি বড় হয়েছি....আর শান্ত সে তো কবেই হয়ে গেছি। কিন্তু বৃষ্টির দিনে, ঝোড়ো হাওয়ায় যখন বাড়ির পাশের নারকোল গাছটা অনেক জোরে দুলতে শুরু করে, তখন আমি তোমার আঁচল খুঁজি ঘুম ভাঙা চোখ নিয়ে স্বপ্নের ঘোরে....আসলে ঘুমন্ত আমি তো রোজ স্বপ্নে তোমার আর বাবার কাছেই পৌঁছে যাই, হয়তো তুমি ওপর থেকে দেখো, হয়তো হাত বাড়িয়ে দাও আমার প্রতিবার পড়ে যাওয়ার মুহূর্তে....না হলে কে আমায় বারবার বাঁচায় তুমি আর বাবা ছাড়া।

  আমি খুব দুস্টু ছিলাম, হয়তো অবাধ্যও কিন্তু তার শাস্তি এভাবে কেউ দেয় ....তাকে এই পৃথিবীতে ছেড়ে চলে গিয়ে। এমন টা কি হতে পারে না....যা যা হয়েছে সব স্বপ্ন। আমি এখনো সেই তোমার ছোট্ট পিউ তোমার হাত ধরে ঘুরে বেড়াচ্ছি..... নদীর ধারে. বনে জঙ্গলে, বাড়ির পেছনের বাগানে। সেই যে বার আমার খুব জ্বর হলো, তুমি সারারাত আমার মাথায় জলপটি দিলে....তুমি আর বাবা সারারাত ঘুমোলে না। পরদিন আমার জ্বর একটু কমার পর তবে তুমি আমাকে ছেড়ে উঠেছিলে । 

এখনও আমার কখনো কখনো অনেক জ্বর হয় মা...তখন কি তুমি ওপর থেকে তোমার এই পিউ কে দেখতে পাও!! আমি যে ঘুমের ঘোরে আজও তোমায় খুঁজি তা কি তুমি বোঝো মা??  একটা জলপট্টি আর  কপালের ওপর বারবার  স্নেহ ভরা হাত.... আমি সারা রাত খুঁজে বেড়াই যে... তা তুমি কি করে দেখেও চুপ করে আছো মা ??

একটা কথা যা বার বার বলতে ইচ্ছে করে  তোমায়,তুমি পাশের বাড়ির কাকিমার ওপর খুব রেগে যেতে, ছেলেমেয়ে কে বাড়িতে রেখে দিয়ে বেড়াতে যেতো বলে....তাহলে তুমি আর বাবা আজ কি করে আমাকে ফেলে চলে গেলে!! কার ভরসায় আমায় রেখে গেলে?? আমি তো এখনো কোনো কিছুতেই তোমাদের খুঁজি....বারবার ভুল না করেও যন্ত্রনা পাওয়ার কষ্টে তোমাদের হাত ধরতে চাই। আচ্ছা তুমি বলতে ...যে সয়.... সেই রয়।

 কিন্তু ঠিক কতটা সইতে হবে তা তো  কোনোদিন বলো নি তুমি। আমার তো আর জানা হলো না কোনোদিন। কোনোদিন আর কি কেউ তোমার মত করে বোঝাবে আমাকে?? তুমি বারবার বোঝাতে জীবনের প্রতিটি পদক্ষেপ যেন বুঝে বুঝে চলি। ভুল করলে জীবন আর সুযোগ দেয় না ..... চলে যাওয়া সময় আর কোনোদিন ফিরে আসে না। সারাদিন এই সব বলতে তুমি। আমি রেগে গিয়ে বলতাম... উফফ, মা আর কতবার বলবে এক কথা। তুমি একটু হেসে বলতে , যেদিন আমি থাকবো না সেদিন সব বুঝবি নিজে নিজে!!

 সেই অতি সাধারন ভাবে বলা কথাটা এত অসাধারণ তা আজ বুঝি পদে পদে।তার মানে আজ  বুঝেছি  হয়তো বা নিজের জীবন দিয়ে, কিন্তু সেদিন তো বুঝিনি। আজ বারেবারে তোমার এক একটা কথা ঘুরে ফিরে আমার মনের জানালায় উকি মারে। আমার মনে পড়ে যায় তোমার এক একটা কথা��� জীবন এর পথে এগিয়ে যাওয়ার সাহস তোমার কাছেই তো পেয়েছি মা...তাই তোমাকে নিয়ে আমার এই লেখা....

মা কে আমার আর পড়ে না মনে, 

শুধু যখন দিনের শেষে রাতের আঁধার নামে , 

ছায়ায় ভেসে ঘুম পাড়ানি গানের খেয়া নামে।

তোমায় মনে পড়ে মাগো অনেক মনে পড়ে। 

কোলের কাছে জড়িয়ে নেওয়া তোমার হাথের ছোঁয়া, 

তোমার বুকে মাথা রেখে ঘুমের ঘোরে শোয়া।

যখন মনে পরে মাগো অনেক মনে পড়ে।

চোখের জলে আবছা হওয়া তোমার মুখের ছায়া,

 না চাইতেই একটু পাওয়ায় পুরো জগৎ পাওয়া, 

আবার কি সে দিন ফিরবে মা গো বসবো তোমার পাশে ?

বড় কঠিন জগৎ টা যে হাঁফিয়ে গেছি নিজে....                                      

Read More

This article was posted in the below categories. Follow them to read similar posts.
LEAVE A COMMENT
Enter Your Email Address to Receive our Most Popular Blog of the Day