সে চলে গেল ...বলে গেল না
893
1
|   May 23, 2017
সে চলে গেল ...বলে গেল না

প্রিয় মা ,

কেমন আছো মা ? অনেক দিন তোমায় দেখিনি | অনেক দিন তোমার সাথে কথা বলিনি | তোমার গলার স্বর ..... তোমার "অপু উউউউউউ " বলে ডাক টা কোথায় যেন হারিয়ে গেছে | বড় মন করে তোমার কাছে যেতে ....বড় মন করে তোমার সাথে কথা বলতে .....বড় স্বাদ হয় ...... তোমার স্পর্শ পেতে .....| মনে পরে মা ,যখন তুমি কাজের মাঝে, আমার দুটো হাত ধরে আমায় নিজের কাছে টেনে নিয়ে বলতে ...."দাঁড়া খোকা ,আর একটু সবুর স.... হাথের কাজটা সেরে নিয়েই আমি তোর কাছে আসছি ," আর তারপর আমি আর তুমি মিলে কখনো রাজপুত্তুর আর রাজকন্যা র গল্প,কখনো ব্যাঙ্গমা আর ব্যাঙ্গমীর গল্প আবার কখনো দুষ্টু রাক্ষসের হাত থেকে রাজকুমারী কে বাঁচানোর গল্প শুনে কাটিয়ে দিতাম সারাটা দুপুর | আর সন্ধ্যা বেলা যখন তুমি তুলসী তলায় সন্ধ্যা প্রদীপ দিয়ে আমার কাছে এসে দাঁড়াতে , তখন যেন তোমায় সেই লাল পেরে গরদের শাড়ী ও কপালে লাল সিঁদুরের টিপে ... মা নয় ,এক দেবীর রূপে চিনতে শিখেছিলাম আমি | মনে পরে মা ....যখন প্রথম দিন আমি কলেজ গেলাম ....তুমি আমার হাত ধরে বারবার বলেছিলে...."খোকা ,গাড়িঘোড়া দেখে রাস্তা ক্রস করবি,একদম তাড়াহুড়ো করবি না".... আমি জানি তুমি সেদিন খুৱ চিন্তায় ছিলে সারাদিন....আমি বাড়ি না ফেরা অবধি শুধু ই ঘর আর বার করেছিলে .....আর যখন আমি বাড়ির সম্মুখে এসে হাজির , তখন দেখি তুমি দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে দুই হাত জোর করে ঠাকুর প্রণাম করছ | তোমার সেই দিনটার কথা মনে আছে মা ,২২ সে ডিসেম্বর ১৯৮৪ ,আমার আজ ও মনে পড়ে সেই দিন টা.... আমি আমেরিকায় খুৱ ভালো চাকরির অফার পেলাম .....ফ্যামিলি সমেত শিফট করার অফার ...তবে ওখানকার নিয়ম কানুন আমাদের দেশের চেয়ে ভিন্ন....ওরা ফ্যামিলি বলতে ...হাসব্যান্ড ,ওয়াইফ ও বাচ্চা কে বোঝায় শুধু.... ছেলের মা বা বাবা ...... ওখানে পার্মানেন্ট ছেলের সঙ্গে থাকার অনুমতি শুরুতেই পায় না | তোমার সেদিন কষ্ট হয়েছিল খুৱ আমি জানি ,কিন্তু শুধু আমার ভবিষ্যতের কথা ভেবে,তুমি আমায় হাঁসি মুখে বিদায় জানিযেছিলে | প্রথম দিকে আমি নিয়ম করে তোমার কাছে বছরে একবার দেখা করতে অবশ্যই, আসতাম ...তারপর কাজের চাপে ও না না ঝামেলায় আমার দেশে আসা কমে গেলো ...অনেক কমে গেলো |একবার ...তোমার মনে পড়ে মা... টুরিস্ট ভিসা য় তোমায় আমেরিকা নিয়ে যাওয়ার সব বন্দোবস্ত করেছিলাম ......| তোমার খুশির সীমা ছিল না..... যতরকমের জিনিস আমি তোমার বৌমা ও তোমার নাতি তোতনের পছন্দের তুমি এক একটা করে সংগ্রহ করে নিজের ব্যাগ গুছিয়েছিলে.....|২৩ সে মে ,১৯৯০ .....আজ মধ্যরাতে তোমার ফ্লাইট .....সকাল ১১ টার সময় ফোন টা বেজে উঠলো...."ISD মনে হচ্ছে ..... হ্যালো "...."হ্যালো আমি কলকাতা থেকে কুশল বলছি ,অপুদা ....আজ সকালে কাকিমা পুজো করার জন্য বাগানে ফুল তুলতে গিয়ে,পা পিছলে পরে যান ও মাথায় আঘাত পাওয়ার দরুন প্রবল রক্তপাত হয় | আমি চিৎকার শুনে ওখানে এসে কাকিমাকে উঠিয়ে হাসপাতাল নিয়ে যেতে যেতেই পথে ............! তুমি যত তাড়াতাড়ি পারো এসে যাও অপুদা."লাইন টা কেটে গেলো.......আমি..... নির্বাক...... স্তম্ভিত...... অসহায় ! এক মুহূর্তের জন্য আমার চোখের সামনে সব কিছু অন্ধকার হয়ে গেল ......পায়ের তলার মাটি হারালাম আমি.| এক মুহূর্তে সব শেষ হয়ে গেল |

আজ ২৩ সে মে ..২ ০ ১ ৭ ...... | আজ ২৭ বছর ....পেরিয়ে গেছে....আজ আর তুমি আমার কাছে নেই মা | আজ আর আমাকে "আপুউউউউউ " বলে কেউ ডাক দেয় না .....আজ আর কাউকে আমি " মা " বলে ডাকি না গো | শুধু মাঝে মাঝে তোমায় দেখতে বড় ইচ্ছে করে ,তোমার সাথে কথা বলতে বড় ইচ্ছে করে গো মা ..........তুমি কোথায় আছো, কেমন আছো, আমার যে বড় জানতে ইচ্ছে করে মা...! আজ যদি একবার তোমাকে কাছে পেতাম ,যদি একবার তোমার সাথে আজ ���থা বলতে পারতাম ....তাহলে শুধু একটা কথাই তোমায় জিজ্ঞাসা করতাম মা গো......সেদিন তুমি চলে গেলে... তোমার অপু কে কেন একবার বলে গেলে না "?

 অভাগা অপু 

Read More

This article was posted in the below categories. Follow them to read similar posts.
LEAVE A COMMENT
Enter Your Email Address to Receive our Most Popular Blog of the Day